বিনোদন

অমিতাভ থেকে টাইগার, সবাই রিতেশের প্রেরণা

বাবা বিলাস রাও দেশমুখ ছিলেন দুঁদে রাজনীতিবিদ, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। ছেলে রিতেশ দেশমুখ মোটেই রাজনীতির আঙিনায় পা রাখতে চাননি। তিনি বেছে নেন অভিনয়ের জগৎকে। একের পর এক হিট ছবির নায়ক রিতেশ। কখনো তিনি নায়ক, কখনোবা খলনায়ক, আবার কখনো কমেডি চরিত্রে। এবার বাগি থ্রি ছবিতে এক ভিন্ন চরিত্রে রিতেশ। মুম্বাইয়ের একটি পাঁচতারা হোটেলে সাক্ষাৎকারের শুরুতেই উঠে এল টাইগার শ্রফের হিট ছবি বাগির সঙ্গে তাঁর যুক্ত হওয়ার কথা।

যে কারণে ‘বাগি’তে

আহমেদ খান পরিচালিত বাগি থ্রি ছবিকে রিতেশ এক বিশেষ কারণে বেছে নেন। তিনি বলেন, ‘আমি দুই বা তিন বন্ধুকে নিয়ে অনেক ছবি করেছি, কিন্তু দুই ভাইয়ের সম্পর্ক নিয়ে কোনো ছবি করিনি। এই ছবিতে দুই ভাইয়ের সম্পর্ক একদম ব্যতিক্রম। এক ভাই ভীতু, নরম; আরেক ভাই সাহসী। বাগি থ্রি ছবিতে রোমহর্ষক অ্যাকশনের পাশাপাশি লুকিয়ে আছে এক আবেগে ভরা কাহিনি। ছবির এই আবেগের দিকটা আমাকে ছুঁয়ে গেছে।’

রিতেশের অনুপ্রেরণা

হাউসফুল, টোটাল ধামাল, গ্র্যান্ড মস্তিসহ বিভিন্ন হিট সিক্যুয়াল ছবিতে কাজ করেছেন রিতেশ। এসব ছবি ছিল বড় বাজেটের, তারকাবহুল। নিজের এই ফিল্মি সফরকে ঘিরে রিতেশ বলেন, ‘প্রত্যেকের নিজের এই সফরকে দেখার দৃষ্টভঙ্গি আলাদা। আমি দেখি যে আমি কত ধরনের অভিনেতার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। কত বড় ব্যক্তিত্বের সান্নিধ্যে এসেছি। অমিতাভ বচ্চন, মিঠুন, শাহরুখ, সালমান, অক্ষয় থেকে আজকের সিদ্ধার্থ, টাইগারের সঙ্গে কাজ করেছি। তাঁদের প্রত্যেকের থেকে কিছু না কিছু শিখেছি। প্রত্যেকের ব্যক্তিত্বই আমাকে অনুপ্রাণিত করে। আমাকে নানান দিক থেকে সমৃদ্ধ করে।’

বাগি থ্রি ছবিতে টাইগার শ্রফের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা প্রসঙ্গে বলিউডের এই নায়ক বলেন, ‘টাইগার তো এ প্রজন্মের সুপারস্টার। তার একাগ্রতা আমাকে অবাক করেছে। সাইবেরিয়ার মাইনাস ৭ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ও খালি গায়ে শুটিং করে গেছে। আর আমি শীতের সব রকম পোশাক পরেও ঠান্ডায় থরথর করে কেঁপেছি। একবারের জন্যও টাইগারকে কোনো অভিযোগ করতে দেখিনি। ওর নিজের শরীর এবং মনের ওপর অসম্ভব ভালো নিয়ন্ত্রণ।’

কৌতুকাভিনেতা, ভিলেন, নায়ক—সব ধরনের চরিত্রেই অনবদ্য রিতেশ দেশমুখ। অভিনেতা হিসেবে তিনি নিজে কোন ঘরানা বেশি উপভোগ করেন। এর জবাবে রিতেশ বলেন, ‘শুধু ঘরানা নয়, আমি সব ধরনের চরিত্র উপভোগ করি। প্রতিটা চরিত্রে আলাদা আলাদা চ্যালেঞ্জ থাকে। আমি গ্র্যান্ড মস্তি, ব্লাফ মাস্টার, উইকলি মালামাল, আপনা স্বপ্না মানি মানি, টোটাল ধামালসহ আরও অনেক কমেডি ছবিতে অভিনয় করেছি। প্রতিটা চরিত্র কমেডি হলেও চরিত্রের ধরনে ছিল ভিন্নতা।’

বাগি ৩ ছবির প্রচারে টাইগার, শ্রদ্ধা ও রিতেশ
বাগি ৩ ছবির প্রচারে টাইগার, শ্রদ্ধা ও রিতেশ
রিতেশের পরিবার

এদিনের এই আড্ডায় উঠে আসে রিতেশের পরিবারের কথা। রাজনীতিক পরিবারের ছেলে হয়েও অভিনয়ের জগতে আসেন তিনি। এ ব্যাপারে বাবার সঙ্গে মতানৈক্য হয়নি? এর জবাবে রিতেশ বলেন, ‘আমার এবং বাবা-মায়ের চিন্তাভবনা ও মতাদর্শের মধ্যে খুব একটা পার্থক্য কখনোই ছিল না। বাবা তখন মুখ্যমন্ত্রী। আমি বাবাকে গিয়ে বলি যে আমি অভিনয় করতে চাই। বাবা সঙ্গে সঙ্গে বলেন যে “ঠিক আছে সিনেমা করো।”’ রীতেশের স্ত্রী বলিউড অভিনেত্রী জেনেলিয়া ডিসুজা। জেনেলিয়ার সঙ্গে বিয়ের সময় রিতেশের বাড়ির অবস্থা জানতে চাইলে মজার ছলে তিনি বলেন, ‘বিয়ের আগে কোনো ঝামেলাই হয়নি। আসল ঝামেলা তো বিয়ের পর শুরু হয়!’

বায়োপিকে বাবার জীবন

বিলাস রাও দেশমুখের রাজনীতি–জীবন এক প্রেরণাদায়ক কাহিনি। একজন প্রযোজক হিসেবে রিতেশ বাবা বিলাস রাও দেশমুখকে নিয়ে ছবি বানাতে চান। তবে তিনি এ–ও বলেন, ‘বাবার ওপর বায়োপিক বানানো মোটেও সহজ কাজ নয়। কারণ, এটা আমার হৃদয়ের অত্যন্ত কাছের। কোনো বিষয়ের সঙ্গে যখন আত্মিক সংযোগ থাকে, তখন কোনটা সঠিক কোনটা ভুল, তা বুঝে ওঠা মুশকিলের। আমি যদি বাবার জীবনের ওপর বায়োপিক বানাই, তখন সবাই বলবে যে আমি সব ভালো ভালো দিক দেখিয়েছি। আবার অন্য কেউ বাবার ওপর ছবি বানালে আমি বলব, এটা তো ছিল না। বাবা এ রকম তো করতেন না। এ নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডা চলতেই থাকবে।’ রিতেশ আরও বলেন, ‘একবার আমি ভেবেছিলাম যে বাবার ওপর বায়োপিক বানিয়েই ফেলি, কিন্তু একটা মানুষের সারা জীবনকে পর্দায় সীমিত সময়ের মধ্যে তুলে ধরা সহজ কথা নয়।’

নতুন ছবি

রিতেশ বাবার আদর্শ এবং মূল্যবোধকে পাথেয় করে চলতে চান। তিনি বলেন, ‘আমি চাই আমার সন্তানেরাও যেন আমাদের পরিবারের একতা, সংস্কৃতি এবং মূল্যবোধকে উপলব্ধি করে। আর তারা যেন এ সবকিছুকে আত্মস্থ করে।’ রিতেশ এই মুহূর্তে ব্যস্ত তাঁর আগামী চলচ্চিত্র নিয়ে। ছত্রপতি শিবাজী মহারাজের ওপর ছবি নির্মাণ করতে চলেছেন তিনি। মারাঠি ও হিন্দি—দুই ভাষাতেই ছবিটি মুক্তি পাবে। শিবাজীর চরিত্রে সম্ভবত তাঁকেই দেখা যাবে। আর শিবাজীর স্ত্রীর চরিত্রে তিনি তাঁর স্ত্রী জেনেলিয়াকে নেবেন, এমনটাই আভাস দিলেন রিতেশ।

Leave a Comment